BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর
Wednesday, 21 Apr 2021  বুধবার, ৭ বৈশাখ ১৪২৮
Bartalipi, বার্তালিপি, Bengali News Portal, বাংলা খবর

BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর

বাংলা খবর

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বাংলা নিউজ পোর্টাল

তৃতীয় পৰ্বের প্ৰচার শেষ, বেশি আসন পাবে মহাজোট!

Bartalipi, বার্তালিপি, তৃতীয় পৰ্বের প্ৰচার শেষ, বেশি আসন পাবে মহাজোট!

অসমে ভোটের তৃতীয় পৰ্যায়ে নিৰ্বাচনী প্ৰচার রবিবার শেষ হল৷ এই পৰ্বে ৪০টি আসনে ভোট নেওয়া হবে৷ রাজনৈতিক মহল মনে করছে, এই পৰ্বে মহাজোটেরই বেশি সংখ্যক আসন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শৰ্মা দুই সভ্যতার লড়াই বলে অসমের বিভিন্ন জাতি গোষ্ঠীর মধ্যে যে বিভাজন আনার প্ৰয়াস করেছেন তাতে মহাজোটের আসন সংখ্যাই বাড়ার সম্ভাবনা কাৰ্যত বেড়ে গিয়েছে৷ যদিও গেয়া দল এটাকে মানতে রাজি হচ্ছেন না৷ তাদের সাফ বক্তব্য, স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী যা-ই বলে থাকুন না কেন, মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সোনোয়াল কিন্তু জাতি-ধৰ্ম-বৰ্ণ নিৰ্বিশেষে সব জনগোষ্ঠীর সম উন্নয়নেই সৰ্বাধিক গুত্ব আরোপ করেছেন৷ তার সুফল এ বার বিজেপি নিৰ্বাচনে অবশ্যই পাবে৷
আবার মহাজোট নেতারা অন্য তত্ত্ব দিচ্ছেন৷ তাঁদের বক্তব্য হচ্ছে, সৰ্বানন্দ মুখ্যমন্ত্ৰী বটে, কিন্তু ভোটের সব রণকৌশল নিৰ্ধারণ করেন হিমন্তবিশ্ব শৰ্মাই৷ এর ফলে মুখ্যমন্ত্ৰীর আন্তরিকতায় কোনও খাদ না থাকলেও বিজেপি-র বহু ভোট এ বার অন্য দলের ব্যালট বাক্সে চলে যেতে পারে৷ বিশেষত সংখ্যালঘু সম্প্ৰদায়ের ভোট এ বার মহাজোটের পক্ষেই যাচ্ছে৷ এটা যে শুধু আজমলের জন্যই হচ্ছে, এমন নয়৷ বরং বদরুদ্দিনের কিছু কিছু নীতি-নিৰ্দেশনা সংখ্যালঘুরা খুব একটা ভাল চোখে দেখছেন না৷ রাজনৈতিক মহল এমন কথাও বলছে, কংগ্ৰেস যদি এ বার আজমলের সঙ্গে কোনও রফা না করত তা হলেও ধৰ্মীয় সংখ্যালঘুরা আজমলকে ছেড়ে কংগ্ৰেসের ভোট বাক্স স্ফীত করত৷ এটা এ কারণেই নয় যে, কংগ্ৰেস তোষণের রাজনীতি করে৷ পাশাপাশি মোদির কিছু পদক্ষেপকেও কাৰ্যত সিলমোহর দিয়েছেন সংখ্যালঘু সম্প্ৰদায়ের বেশ কিছু মহিলাও৷ যেমন তিন তালাক প্রশ্নে কেন্দ্ৰীয় সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন বহু মুসলিম মহিলা৷
গেয়া দল আশা করছে, মুসলিম মহিলাদের একটা বড় সংখ্যক ভোট তারা এ বার পাবেন৷ ফলে মহাজোট তৃতীয় পৰ্যায়ে তাদের আসন সংখ্যা বাড়বে বলে যে দাবি করছে তার কোনও ভিত্তি নেই৷ আগামিকাল যে ৪০টি আসনে ভোট হবে তা মূলত ষোলো জেলায় ছড়িয়ে রয়েছে৷ বিশেষত নিম্ন অসম এবং বিটিআর এলাকায় এই আসনগুলো সীমাবদ্ধ থাকায় বিজেপি-র পক্ষে খুব বেশি ভাল ফল আশা করা ঠিক হবে না বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক ভাষ্যকাররা৷
মহাজোট নেতারা অবশ্য বলছেন, তৃতীয় পৰ্বে বাম দলেরও প্ৰাৰ্থী আছেন যিনি সরভোগ থেকে প্ৰতিদ্বন্দ্বিতা করবেন৷ আগে এই কেন্দ্ৰে বহুবার বিজয়ী হয়েছে সিপিএমের প্ৰবীণ নেতা হেমেন দাস৷ এখন তাঁর জায়গায় দলের প্ৰাৰ্থী হচ্ছেন মনোরঞ্জন তালুকদার৷ তাছাড়াও রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শৰ্মার নিজের কেন্দ্ৰ জালুকবাড়িতেও মঙ্গলবার নিৰ্বাচন৷ তাছাড়াও যে সব উল্লেখযোগ্য কেন্দ্ৰে ওইদিন ভোট হবে সেগুলো হল ছয়গাঁও, সরুক্ষেত্ৰী, চাঁপাগুড়ি, পাথাচারকুচি সহ আরও বহু কেন্দ্ৰে৷
এ দিকে, ইউডিএফের সাধারণ সম্পাদক করিম উদ্দিন বড়ভূঁইয়া (সাজু) এক প্ৰেস বিবৃতিতে বলেছিলেন, নিম্ন অসমের বিশেষত বরপেটা জেলার পাঁচটি আসনের মধ্যে পাঁচটিতেই জয়ী হবেন তাঁদের প্ৰাৰ্থীরা৷ এই আসনগুলো হল সরুক্ষেত্ৰী, এতে প্ৰতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মিনাক্ষী রহমান৷ তাছাড়াও জনিয়াতে ড. হাফিজ রফিকুর ইসলাম, ভবানীপুরের ফণী তালুকদার, টেঙাতে আসরাফুল হোসেন এবং বাঘবরে রাজীব আহমেদ৷ করিম উদ্দিনের দাবি, এই সব কেন্দ্ৰে যে সব জনসভা তিনি করেছেন তাতে এত বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন যে তা থেকে তাঁরা নিশ্চিত, এ সমস্ত আসনে মহাজোটের প্ৰাৰ্থীরাই জয়ী হবেন৷