BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর
Wednesday, 21 Apr 2021  বুধবার, ৭ বৈশাখ ১৪২৮
Bartalipi, বার্তালিপি, Bengali News Portal, বাংলা খবর

BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর

বাংলা খবর

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বাংলা নিউজ পোর্টাল

মমতা কাণ্ড চক্রান্ত না দুর্ঘটনা! দুই তত্ত্বে তপ্ত বঙ্গ রাজনীতি

Bartalipi, বার্তালিপি, মমতা কাণ্ড চক্রান্ত না দুর্ঘটনা! দুই তত্ত্বে তপ্ত বঙ্গ রাজনীতি

চক্রান্ত না নিছক দুর্ঘটনা— এই দুই তত্ত্বের টানাপোড়েনে বৃহস্পতিবার দিনভর উত্তপ্ত হয়ে রইল বঙ্গ রাজনীতি। যাঁকে ঘিরে আগের রাত থেকে বাড়তি মাত্রা যোগ হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনী উত্তেজনায়, সেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডের সাড়ে ১২ নম্বর কেবিনের বিছানায় বাঁ পায়ে ব্যান্ডেজ নিয়ে শয্যাশায়ী। বুধবার সন্ধ্যায় নন্দীগ্রামে প্রচারের সময় আঘাত পাওয়ার পর তাঁকে রাতেই গ্রিন করিডোর করে তড়িঘড়ি কলকাতার এসএসকেএম-এ নিয়ে আসা হয়। বুধ সন্ধ্যায় নন্দীগ্রামের বিরুলিয়া বাজারে গুরুতর আঘাত পাওয়ার পরই এর নেপথ্যে 'চক্রান্তের' অভিযোগ তুলেছিলেন মমতা। সেই অভিযোগের সূত্র ধরেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। 

রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল সরাসরি এই ঘটনার নেপথ্যে বিজেপির হাত আছে বলে অভিযোগ তুলেছে। সেইসঙ্গে নিশানা করেছে নির্বাচন কমিশনকেও। অন্যদিকে, বিজেপি ওই ঘটনার উচ্চপর্যায়ের তদন্ত ও ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ্যে আনার দাবি তুলেছে। নেত্রীর বিরুদ্ধে 'হামলার' প্রতিবাদে নন্দীগ্রাম-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় এ দিন বিক্ষোভ মিছিল, পথ অবরোধ করে তৃণমূল সমর্থকরা। পাল্টা প্রতিবাদে শামিল হয় বিজেপিও। এ নিয়ে বিক্ষিপ্ত উত্তেজনা ছড়ায়। এই অভিযোগ পালটা অভিযোগের মধ্যেই নন্দীগ্রামের ঘটনা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং দুই পুলিশ পর্যবেক্ষকের কাছে রিপোর্ট চেয়ে পাঠায় নির্বাচন কমিশন। শুক্রবারের মধ্যে এই রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন কমিশনের সচিব রাকেশ কুমার। 


তবে নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর আহত হওয়ার ঘটনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর নীরবতা নিয়ে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে পর্যবেক্ষক মহলে। বিজেপির তরফ থেকে একাধিক কেন্দ্রীয় ও রাজ্য নেতা 'চক্রান্তের' তত্ত্বকে নস্যাৎ করে পুরো ঘটনাটিকে 'সাজানো নাটক' বলে পালটা তির দাগলেও এ নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন মোদি ও শাহ। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, এই ঘটনা নিয়ে এ দিন বিকেল পর্যন্ত একটি শব্দও উচ্চারণ করতে শোনা যায়নি নন্দীগ্রামে ভোটের লড়াইয়ে মমতার প্রধান প্রতিপক্ষ শুভেন্দু অধিকারীকেও। যদিও এ দিনও শুভেন্দু নন্দীগ্রামে গিয়ে বিভিন্ন মন্দিরে শিবরাত্রির পুজো দেন। জনসংযোগও করেন।


শুধু বিজেপি নয়, মমতার আহত হওয়ার ঘটনায় নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেও সুর চড়িয়েছে তৃণমূল। এ নিয়ে এ দিন কমিশনকে এক কড়া চিঠি দিয়ে আসেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, মহিলা তৃণমূলের সভানেত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ও রাজ্যসভার দলনেতা ডেরেক ও'ব্রায়েন। চিঠিতে তৃণমূল অভিযোগ করেছে, মুখ্যমন্ত্রীর ওপর যে আঘাত নেমে আসবে, সেই পূর্বাভাস আগেই পাওয়া গিয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায় একাংশ বিজেপি নেতার পোস্টে। তাছাড়া, শাসকদলের অভিযোগ, ভোট ঘোষণার পরই রাজ্য প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ চলে গেছে কমিশনের হাতে এবং তা কার্যত চালিত হচ্ছে বিজেপির নির্দেশে। চিঠিতে এমন কথাও উল্লেখ করা হয়েছে যে রাজ্য সরকারের সঙ্গে কোনও রকম পরামর্শ না করেই রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে বদল করা হল। যার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ৬৬ বছর বয়সী দেশের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এমন এক ঘটনা ঘটে গেল। উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাজ্যের পুলিশ প্রধান পদে বীরেন্দ্রকে সরিয়ে কমিশন তাঁর স্থলাভিষিক্ত করে প্রাক্তন সিবিআই আধিকারিক নীরজনয়ন পাণ্ডেকে। ফলে নন্দীগ্রামের ঘটনার দায় কমিশনও এড়াতে পারে না বলেই মনে করে তৃণমূল।


এর পালটা বিজেপি নেতা সব্যসাচী দত্ত ও শিশির বাজোরিয়া কমিশনে গিয়ে নন্দীগ্রামের ঘটনার উচ্চপর্যায়ের পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করে আসেন। তাঁরা বলেন, মুখ্যমন্ত্রী 'মিথ্যা' কথা বলে নির্বাচনের আগে সহনাভূতি আদায় করতে চাইছেন। ওই সময়ের ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ্যে আনারও দাবি তুলেছে বিজেপি। তবে স্থানীয় লোকজনের একাংশ সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, বারুলিয়া বাজারের ওই রাস্তায় প্রায় কোমর সমান দু'টি লোহার খুঁটিতে মমতার গাড়ির দরজার আচমকা ধাক্কা লাগাতেই তিনি আহত হন। যাতে ভারী যানবাহন ঢুকতে না পারে তার জন্যই রাস্তার প্রায় মাঝ বরাবর খুঁটি দু'টি পোঁতা আছে, যা আধো অন্ধকারে গাড়ির ড্রাইভারের চোখ এড়িয়ে যেতে পারে। 


টিভি চ্যানেলের ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, ওই সময় মমতা দরজা খুলে গাড়ির পাদানিতে দাঁড়িয়ে সমবেত লোকজনকে নমস্কার জানাচ্ছিলেন। তাঁর একটি হাত ছিল গাড়ির খোলা জানলা দিয়ে বাইরের দিকে বার করা নমস্কারের ভঙ্গিতে। কিন্তু সংবাদ মাধ্যমের এই ভিডিও ফুটেজেই দেখা গেছে, মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি ঘিরে তখন জনতার ভিড়। ওই সময় কোনও নিরাপত্তা বলয়ের বালাই ছিল না। কাছেপিঠে চোখে পড়েনি কোনও পুলিশও, যে অভিযোগ গতরাতেই করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই ভিড় থেকে গাড়ির দরজায় কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে আচমকা ধাক্কা মেরেছে কিনা, তা এখন তদন্তের আতসকাঁচের তলায়। এ দিন সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পূর্ব মেদিনীপুরের ডিএম ও এসপি। তৃণমূল নেত্রীর ইলেকশন এজেন্ট শেখ সুফিয়ানের অভিযোগের ভিত্তিতে স্থানীয় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।