BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর
Wednesday, 21 Apr 2021  বুধবার, ৭ বৈশাখ ১৪২৮
Bartalipi, বার্তালিপি, Bengali News Portal, বাংলা খবর

BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর

বাংলা খবর

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বাংলা নিউজ পোর্টাল

মহাপুরুষ শ্রী শ্রী শঙ্করদেব

Bartalipi, বার্তালিপি, মহাপুরুষ শ্রী শ্রী শঙ্করদেব

আধুনিক যুগের অসমিয়া সাহিত্যে শঙ্করদেবের জীবনচরিত, শঙ্করী দর্শন, বিপুল বৈষ্ণব সাহিত্য পরিক্রমা, সঙ্গীত আদি বিষয়কে কেন্দ্র করে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চর্চা করেছেন বিশিষ্ট পণ্ডিত সমালোচক ডক্টর মহেশ্বর নেওগ। ডক্টর নেওগের পূর্বসূরী ডক্টর বাণীকান্ত কাকতি শঙ্করী সাহিত্য-সংস্কৃতির যে চর্চা এবং গবেষণা শুরু করেছিলেন ডক্টর নেওগের হাতে তাই পূর্ণতা লাভ করে। ডক্টর নেওগের শঙ্করদেব অধ্যয়নের   নিদর্শন ' শ্রী শ্রী শঙ্করদেব' হল এক বিজ্ঞানসম্মত এবং প্রণালীবদ্ধ ভাবে রচিত জীবন বৃত্ত। নেওগ সমসাময়িক বিভিন্ন অসমিয়া পত্র পত্রিকায় শঙ্করদেবের জীবনচরিত এবং দর্শন, সঙ্গীত, সাহিত্য নাটক বিভিন্ন চরিত্র পুথি ইত্যাদির বিষয়ে পদ্ধতিগত চর্চা এবং অধ্যায়নের পথ অনুসরণ করেছেন।

  ডক্টর নেওগের বৈষ্ণব সাহিত্য সংস্কৃতি অধ্যয়নের পদ্ধতি হল বিদ্যায়তনিক। মহাপুরুষের প্রতি ঐকান্তিক ভক্তি অটুট রেখেও তিনি শঙ্করদেবকে মানুষরূপে জীবনচরিতে অঙ্কন করেছেন। কীর্তন-নামঘোষা, কথা ভাগবত, একাধিক গুরু-চরিত, ইত্যাদির সম্পাদনা ডক্টর নেওগের গবেষণা এবং চর্চার  ফলশ্রুতি। তাছাড়া বিভিন্ন পুথির পাঠ সমীক্ষার ক্ষেত্রে নেওগ হলেন অগ্রণী । তিনি শঙ্করদেব এবং বৈষ্ণবীয় সাহিত্য সম্বন্ধে ইংরেজিতেও কয়েকটি প্রামাণ্য গ্রন্থ রচনা করেছেন। তার উন্নত মানের অধ্যয়নের মাধ্যমে  শঙ্করদেব এবং নব বৈষ্ণব সাহিত্য সংস্কৃতি সর্বভারতের পরিচিতি লাভে সমর্থ হয়েছে। সত্রীয়া সঙ্গীতের চর্চা, গবেষণা এবং প্রসারেও ডক্টর নেওগের অবদান অপরিসীম।

  নেওগের সমকালীন পন্ডিত লেখকদের মধ্যে ডক্টর সত্যেন্দ্রনাথ শর্মা ,প্রদীপ চলিহা, ডক্টর মহেন্দ্র বরা, ডক্টর মুকুন্দ মাধব শর্মা, ডক্টর ভূপেন হাজরিকা, মহিম বরা, ডক্টর কেশবানন্দ দেবগোস্বামী, বাপচন্দ্র মহন্ত, ডক্টর লীলা গগৈ, চন্দ্রপ্রসাদ শইকীয়া, ডক্টর নগেন শইকীয়া, ডক্টর রঞ্জিত দেব গোস্বামী ইত্যাদি অনেক লেখক এবং গবেষক শঙ্করদেব এবং বৈষ্ণব ধর্ম সাহিত্য সংস্কৃতির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন।

  আধুনিক অসমের প্রগতিশীল দৃষ্টিভঙ্গির চিন্তানায়করা নতুন আলোতে শঙ্করদেবের জীবনচরিত এবং শিক্ষা পর্যালোচনা করেছেন। অসমে বামপন্থী চিন্তাধারার লেখক ভবানন্দ দত্ত প্রথমে এই দৃষ্টিকোণ থেকে শঙ্করদেবের অধ্যয়ন শুরু করেন। পরবর্তীকালে এই ধারার বিশিষ্টদের মধ্যে ডক্টর হীরেন গোঁহাই, অনিল রায়চৌধুরী, ডঃ অমলেন্দু গুহ,শশী শর্মা, ডক্টর শিবনাথ বর্মন, ধ্রুবজ্যোতি বরা, রঞ্জিত কুমার দেবগোস্বামী, বিজন লাল চৌধুরী আদির  নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

    এ দিক থেকে দেখতে গেলে ডঃ হীরেন গোঁহাইর অবদান সবচেয়ে অধিক এবং গুরুত্বপূর্ণ। তিনি পত্রপত্রিকায় শঙ্করদেব সম্পর্কে অনেক প্রগতিশীল দৃষ্টিভঙ্গির মূল্যবান প্রবন্ধ লিখেছেন। এসবের মধ্যে শঙ্করদেবের চরিত্র অধ্যয়ন, শ্রীমন্ত শঙ্করদেব এবং অসমের ইতিহাস', 'মানুষ শঙ্করদেব' ইত্যাদি নিবন্ধ এবং 'কীর্তন পুথির রসবিচার', 'অসমীয়া জাতীয় জীবনে মহাপুরুষীয়া পরম্পরা' এই দুটি গ্ৰন্থ উল্লেখযোগ্য।

    সম্প্রতি অসমিয়া ভাষার বাইরে ইংরেজিতে গ্রন্থ রচনা করে শঙ্করদেব চর্চার ইতিহাসে সক্রিয় ভূমিকা গ্রহণ করেছেন ডঃসঞ্জীব কুমার বরকাকতী। তাঁর প্রকাশিত দুটি ইংরেজি গ্রন্থই পাঠকদের মনে যথেষ্ট আশা এবং উদ্দীপনার সৃষ্টি করেছে।প্রথম গ্রন্থটি হল ‘Mahapurusha Srimanta Sankardev’ । এটি হল মহাপুরুষের এক পূর্ণাঙ্গ জীবন বৃত্ত।আড়াইশো পৃষ্ঠার ও অধিক এই ইংরেজি গ্রন্থে শ্রীমন্ত শঙ্করদেবের  জীবন-চরিত এবং ঘটনা রাশিকে পদ্ধতিগতভাবে পনেরোটা ভাগে ভাগ করা হয়েছে।গ্রন্থের প্রতিপাদ্য বিষয় হল প্রণালীবদ্ধভাবে ঐতিহাসিক এবং বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তিতে মহাপুরুষের জীবন-কাহিনি উপস্থাপিত করা। গ্রন্থটিকে লেখকের কঠোর পরিশ্রম এবং আত্মবিশ্বাসের পরিচায়ক বলা যেতে পারে।

    ডঃসঞ্জীবকুমার  বরকাকতীর সম্প্রতি প্রকাশিত অন্য একটি ইংরেজি গ্রন্থ হল ‘Unique Contributions of Srimanta Sankardev in Religion and Culture’। শ্রীমন্ত শঙ্করদেব সংঘ প্রকাশ করা এই গ্রন্থটি অসমিয়া সাহিত্যের ইতিহাসে এক অমূল্য সংযোজন।এতে প্রথম অধ্যায়ে মহাপুরুষের জীবন-চরিত বর্ণনা করা হয়েছে।শঙ্করদেবের অবদান সমূহের মৌলিকতা,একশরণ নামধর্মের বৈশিষ্ট্য,শঙ্করী গীত-নাট-বাদ্য,কলা-কৃষ্টি, জাতীয় সংহতির ক্ষেত্রে শঙ্করদেবের অবদান,শঙ্করী দর্শন,সর্ব্বভারতীয় প্রেক্ষাপটে শঙ্করদেবের স্থান  ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনার দ্বারা গ্রন্থটি যথার্থই সমৃদ্ধ হয়েছে।  

 এভাবে আমরা দেখতে পাই যে গত প্রায় একশো বছর ধরে  বেজবরুয়া থেকে শুরু করে সাম্প্রতিক কাল পর্যন্ত অসমিয়া সাহিত্যে শংকরদেব অধ্যয়নের নিত্যনতুন দিকগুলি উন্মোচিত হয়ে চলেছে।