BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর
Friday, 26 Feb 2021  শুক্রবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭
Bartalipi, বার্তালিপি, Bengali News Portal, বাংলা খবর

BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর

বাংলা খবর

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বাংলা নিউজ পোর্টাল

বিজেপিকে বার্তা দিয়ে সর্বাত্মক বনধ শিলচরে, মিছিল পুলিশি বাধা ছাড়াই

Bartalipi, বার্তালিপি, বিজেপিকে বার্তা দিয়ে সর্বাত্মক  বনধ শিলচরে,  মিছিল পুলিশি বাধা ছাড়াই

কৃষকের স্বার্থবিরোধী কর্পোরেটপন্থী কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে শাসক বিজেপিকে রীতিমতো বার্তা দিয়ে সর্বাত্মক বনধ পালিত হল শিলচর সহ গোটা কাছাড় জেলায়। সারা ভারত কিষাণ মোর্চার ডাকা ভারত বনধ সফল করতে মঙ্গলবার সাতসকালেই শিলচরের রাস্তায় নেমেছিল কাছাড়ের ১২ টি ট্রেড ইউনিয়ন। শ্রমিক কর্মচারী কৃষক ও ক্ষেত মজুর সংগঠনের সদস্যরা এ দিন শিলচর শহরের মোড়ে মোড়ে বনধ সফল করতে পিকেটিং করেছেন। কিন্তু উল্লেখযোগ্য খবর হলো এ দিনের বনধে পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করেনি।

এই বনধের প্রচারকে কেন্দ্র করে দিন কয়েক আগে আয়োজকদের মিছিল শিলচরের রাস্তায় আটকে দিয়েছিল পুলিশ। এ কথা মাথায় রেখে মঙ্গলবারের বনধ নিয়ে আশঙ্কায় ছিলেন ট্রেড ইউনিয়নের সদস্যরা। যদি কোনওভাবে বল প্রয়োগ করে ভেস্তে দেওয়া হয় বনধ। একইসঙ্গে পাল্টা প্রতিরোধ গড়ার হুশিয়ারিও দিয়ে রেখেছিলেন আয়োজকরা।


 কিন্তু প্রশাসন আশ্চর্যজনকভাবে এদিন সকাল থেকেই গান্ধীগিরির ভূমিকা নেওয়ায় বনধ পালনে কোনও প্রশাসনিক বাধায় পড়তে হয়নি ট্রেড ইউনিয়নের সদস্যদের। তবে সমর্থন জানালেও এ দিনের ভারত বনধে বনধ সফল করতে রাস্তায় নামতে দেখা যায়নি আই এন টি ইউ সি সদস্যদের। বাকি ১১ টি সংগঠনের পিকেটাররা তৎপর ছিলেন। পরিকল্পনা খানিকটা বদলে মঙ্গলবারের বনধে বামপন্থী ট্রেড ইউনিয়নের সদস্যরা শহরজুড়ে মোদি সরকার বিরোধী স্লোগান দিয়ে একের পর এক মিছিল করেছেন। বেলা ১১ টা নাগাদ পিকেটাররা ফেস্টুন ব্যানার পতাকা নিয়ে মিছিল করে আসেন কাছাড়ের জেলাশাসক কার্যালয় এর সামনে। স্লোগান দেওয়া হয় কর্পোরেট দের সেবাদাস মোদি সরকার গদি ছাড়ো। 


তবে স্লোগানে স্লোগানে আকাশ বাতাস কাপালেও মিছিল আটকে দেয়নি পুলিশ। পিকেটাররা শিলচর প্রধান ডাকঘর এর দরজা খোলা দেখে ভিতরে ঢুকে ২৩ জন কর্মী আধিকারিককে কৃষকদের জীবন মরণ আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে কাজ ছেড়ে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানান। আহবানে সাড়া দিয়ে বেরিয়ে আসেন ডাক কর্মচারীরা। বনধে কোথাও কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। অশান্তি সৃষ্টি হয়নি। জেলাশাসক কার্যালয় প্রবেশদ্বারের সামনে দিয়ে মিছিল যাওয়ার সময় পিকেটাররা স্লোগান দিয়ে কর্তব্যরত পুলিশকর্মীকে মিছিলে শামিল হতে আহ্বান জানান। তারা আওয়াজ তোলেন 'কৃষকরা আপনাদেরও অন্নদাতা, তাই কৃষকদের বাঁচাতে বনধ সমর্থনের মিছিলে আপনারাও অংশ নিন। কোনোও বাধা সৃষ্টি না করে এই আহ্বান বেশ উপভোগ করে পুলিশকর্মীরা।


 বনধের জেরে দোকান, বাজার হাট অফিস-আদালত পুরোপুরি বন্ধ ছিল। বন্ধ ছিল অভ্যন্তরীণ সড়ক পরিবহন। যদিও বনধের মধ্যেই চলেছে শিলচর আগরতলা স্পেশাল ট্রেন। এদিকে সিআইটিইউ, আইএনটিইউসি, এআইটিইউসি, এআইইউটিইউসি, টিইউসিসি, এআইসিসিটিইউ, এআইকেএস, টিইউসিসি কাছাড়, এনটিইউআই, ইডবলুটিসিসি, এএমএসইউ এবং এফএসএইচ প্রত্যেক সংগঠনই বনধ সফল হয়েছে বলে দাবি করে।