BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর
Tuesday, 11 May 2021  মঙ্গলবার, ২৭ বৈশাখ ১৪২৮
Bartalipi, বার্তালিপি, Bengali News Portal, বাংলা খবর

BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর

বাংলা খবর

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বাংলা নিউজ পোর্টাল

কীভাবে এক মাস বাইকুল্লা জেলে কাটালেন রিয়া?

Bartalipi, বার্তালিপি, কীভাবে এক মাস বাইকুল্লা জেলে কাটালেন রিয়া?

এক মাস মুম্বইয়ের বাইকুল্লা জেলে কাটানোর পর অবশেষে বম্বে হাইকোর্টের রায়ে বুধবার জামিন পেলেন প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রেমিকা অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী । এক সাক্ষাত্কারে রিয়ার আইনজীবী সতীশ মাণেশিন্ডে জানিয়েছেন কীভাবে এই একমাস জেলে কাটিয়েছেন রিয়া। ওই সাক্ষাত্কারে তিনি অভিযোগ করে এও বলেন, সুশান্তের পরিবার রিয়ার প্রতি প্রতিহিংসাপরায়ণ। ঠিক সেই কারণেই তাঁর বাবা রিয়ার বিরুদ্ধে টাকা তছরুপ এবং আত্মহত্যায় প্ররোচণা দেওয়ার অভিযোগে এফআইআর দায়ের করেছিলেন।

সাক্ষাত্কারে রিয়া চক্রবর্তীকে বাংলার বাঘিনী বলেন তাঁর আইনজীবী। জানান, যেভাবে তাঁর ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা করা হচ্ছে, তা মুখ বুজে সহ্য করবেন না রিয়া। তিনি লড়াই করবেন সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে। নিজের নামে লাগা কালিমা তিনি দূর করবেনই। তিনি আরও বলেন, ‘বহু বছর পর আমি নিজে জেলে কোনও মক্কেলের সঙ্গে দেখা করতে যাই। কারণ ওঁকে ইচ্ছাকৃতভাবে ফ্রেম করা হয়েছিল। ও কী অবস্থায় রয়েছে জেলের ভিতরে, সেটা নিজের চোখে দেখতে চেয়েছিলাম। তবে এটা দেখে ভালোলেগেছিল যে রিয়া ভেঙে পড়েননি। জেলেও নিজের খেয়াল রেখেছেন। নিজের এবং জেলের অন্যান্য আবাসিকদের জন্যে নিয়মিত যোগাসনের ক্লাস নিতেন তিনি। নিজেকে জেলের পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছিলেন।'

তিনি জানান, 'করোনা প্যানডেমিকের কারণে বাড়ির খাবার পেতেন না। জেলের খাবারই খেতেন রিয়া। অন্যান্য আবাসিকদের সঙ্গে সাধারণ মানুষের মতোই দিন কাটিয়েছেন তিনি। সেনা বাহিনীর পরিবেশে বেড়ে ওঠার কারণে, যে কোনও কঠিন পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করার মানসিকতা রয়েছে ওঁর। যে সব মানুষ ওঁর দিকে আঙুল তুলেছিলেন, ক্ষতি করার চেষ্টা করেছিলেন তাঁদের প্রত্যেকের মুখোমুখি হতে তৈরি রিয়া।’

তিনি আরও বলেন, সুশান্তের পরিবারের রিয়ার প্রতি এত রাগ কেন তা নিয়ে এখনও বুঝে উঠতে পারেননি। ‘আমি আগেও বলেছি, আবারও বলছি... কেন্দ্রীয় এজেন্সি সিবিআই, এনসিবি এবং ইডি রিয়াকে এইভাবে তাড়া করে বেরিয়েছে কারণ উনি সুশান্ত সিং রাজপুতের লিভ-ইন পার্টনার ছিলেন।’

মাণেশিন্ডের কটাক্ষ থেকে বাঁচতে পারেনি বিভিন্ন মিডিয়া চ্যানেলও। তাঁর সরাসরি অভিযোগ, যে সব মিডিয়া রাতদিন রিয়াকে তাড়া করে বেরিয়েছে, তারা শুধুমাত্র চ্যানেলের টিআরপি বাড়ানোকেই মাথায় রেখে সব কাজ করেছে।