ভাবিনাবেনের রুপো দিয়ে ক্রীড়া দিবসের সুপ্ৰভাতে রচিত হল গৌরবময় অধ্যায়

ভাবিনাবেনের-রুপো-দিয়ে-ক্রীড়া-দিবসের-সুপ্ৰভাতে-রচিত-হল-গৌরবময়-অধ্যায়
ভাবিনাবেনের রুপো দিয়ে ক্রীড়া দিবসের সুপ্ৰভাতে রচিত হল গৌরবময় অধ্যায়

ভাবিনাবেনের রুপো দিয়ে ক্রীড়া দিবসের

শিলচর : আজ ২৯ আগস্ট৷ হকির জাদুকর মেজর ধ্যানচাঁদের জন্মদিন৷ ভারতের জাতীয় ক্রীড়া দিবস৷ এই দিনেই রাষ্ট্ৰপতি অৰ্জুন, দ্ৰোণাচাৰ্য পুরস্কার তুলে দেন ক্রীড়াজগতে দেশের কৃতিদের হাতে৷ হকির জাদুকরকে সম্মান জানাতে কিছুদিন আগেই রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কারের নতুন নামকরণ করা হয়েছে৷ দেশের সৰ্বোচ্চ ক্রীড়া পুরস্কারের নতুন নাম মেজর ধ্যানচাঁদ খেলরত্ন পুরস্কার৷ প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি সেই ঘোষণা করেন গত ৬ আগস্ট৷ তবে এবছর জাতীয় ক্রীড়া দিবসে কিন্তু ক্রীড়া পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে না। এরপরও এই সুপ্ৰভাতে রচিত হচ্ছে এক গৌরবময় অধ্যায়৷ হ্যাঁ, ভারতের খেলাধূলা, বিশেষ করে টেবিল টেনিসের জন্য এক স্মরণীয় দিন৷ আজ প্যারালিম্পিকের পদক গলায় পরে নিলেন মহিলা প্যাডলার ভাবিনাবেন প্যাটেল৷ তৈরি হল এক গৌরবময় অধ্যায়৷


টোকিও অলিম্পিক শেষ হয়েছে গত ৮ আগস্ট৷ এতে সাতটি পদক জিতে ইতিমধ্যে ঐতিহাসিক নজির গড়েছে ভারত৷ ফলে, টোকিওর সফল অ্যাথলিটরা অবশ্যই ক্রীড়া পুরস্কারে ভূষিত হবেন৷ লভলিনা বরগোঁহাই, নীরজ চোপড়াদের খেলরত্ন হওয়া এক রকম নিশ্চিত৷ তবুও সরকার পুরস্কার জয়ীদের নাম ঘোষণা করেনি৷ কেন করেনি, সেটা অনেকের কাছে বড় কঠিন প্ৰশ্ন৷ আর, অনেকে সেই ব্যাপারে পুরো ওয়াকিবহাল৷ ২৪ আগস্ট শুরু হয়েছে টোকিও প্যারালিম্পিক৷ প্ৰতিবন্ধী বা বিশেষভাবে সক্ষমদের এই অলিম্পিকে ভারত ৫৪ জন প্ৰতিযোগী পাঠিয়েছে৷ তাঁদের সাফল্য কামনায় প্ৰাৰ্থনা করছে ক্রীড়ামহল৷ আর, সরকারও চাইছে একই মঞ্চে প্যারা স্পোৰ্টসম্যানদের সম্মান জানাতে৷ তাই আটকে রয়েছে ক্রীড়া পুরস্কারের নাম ঘোষণা৷ 


তা বলে কি, শুকনোভাবে কাটবে ভারতীয় ক্রীড়ার কিংবদন্তি ধ্যানচাঁদের জন্মদিন? অনেকের সেটা মনে হলেও ভাবিনাবেনের ভাবনা ছিল অন্য রকম৷ অলিম্পিকের টেবিল টেনিসে কোনও পদক জেতার নজির নেই ভারতের৷ সেখানে আজ প্যারালিম্পিকের ফাইনালে নামলেন তিনি৷ চিনের ঝৌ ইংয়ের বিরুদ্ধে তিনি বোৰ্ডে ঝড় তুললেও রুপো নিয়ে‌ই সন্তুষ্ট থাকলেন। একটা রৌপ্যপদক ভারতের জন্য কম বড় প্রাপ্তি নয়।


আজ ফাইনাল খেলার আগে চিনের আরেক প্যাডলার মিয়াং জাও-কে শনিবার পাঁচ সেটে হারিয়েছেন ভাবিনাবেন৷ অথচ এর আগে এই প্ৰতিদ্বন্দ্বীর কাছে এগারোবার পরাজিত হয়েছেন তিনি৷ ২৯ তারিখের সাতসকালে রুপোর পদকের খবর দেওয়ার জন্যই তিনি শনিবার দাঁতে দাঁত চেপে লড়ে শেষ লড়াইয়ে উঠে এসেছিলেন৷ আজই এবারের প্যারালিম্পিকের পদকের খাতা খুলল ভারত৷ ধ্যানচাঁদের জন্য এর চেয়ে ভাল জন্মদিনের উপহার কী হতে পারে?


এবার দেখে নেওয়া যাক মেজর ধ্যানচাঁদকে নিয়ে জানা-অজানা নানা তথ্য ও ভারতীয় ক্রীড়াক্ষেত্ৰে তাঁর অবদান সম্পৰ্কে৷ উত্তরপ্ৰদেশের এলাহাবাদে (বৰ্তমান নাম প্ৰয়াগরাজ) ১৯০৫ সালের ২৯ আগস্ট জন্ম হয় ধ্যানচাঁদের৷ ব্ৰিটিশ ইন্ডিয়ান আৰ্মির হয়ে হকি খেলেছিলেন ধ্যানচাঁদের পরিবারের সদস্যরা৷ বাবা সোমেশ্বর সিংহ সেনাবাহিনিতে চাকরি করতেন৷ মাত্ৰ ১৬ বছর বয়সে ১৯২২ সালে ব্ৰিটিশ ইন্ডিয়ান আৰ্মিতে যোগ দিয়েছিলেন ধ্যান সিং৷ সময়ের অভাবে রাতের দিকে অনুশীলনে মগ্ন থাকতেন কিংবদন্তি এই হকি তারকা৷ এজন্যই সতীৰ্থরা ‘চাঁদ’ নামে সম্বোধন করতেন ধ্যান সিংকে৷ পরে ধ্যানচাঁদ নামেই পরিচিতি পেয়ে যান তিনি৷ কৰ্মজীবনে তিনি পঞ্জাব রেজিমেন্টের মেজর পদে উন্নীত হয়েছিলেন৷

১৯৩২ সালে গোয়ালিয়রের ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে স্নাতক উত্তীৰ্ণ হন ধ্যানচাঁদ৷ ইংরেজদের অধীনস্ত ভারতীয় হকি দলের হয়ে ১৯২৮, ১৯৩২ ও ১৯৩৬ অলিম্পিক খেলেন তিনি৷ প্ৰতিবারই সোনা জেতে ভারত৷ 


১৯২৬ সাল থেকে ১৯৪৯ পৰ্যন্ত বিস্তৃত কেরিয়ারে ১৮৫ ম্যাচে ৫৭০টি গোল করেন৷ ১৯৫৬ সালে তিনি পদ্মভূষণ সানে ভূষিত হন৷ ১৯২৮ সালের আমস্টারডাম অলিম্পিকে সৰ্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন ধ্যানচাঁদ৷ সেবারই হকির জাদুকর হিসেবে নামকরণ হয় ধ্যানচাঁদের৷ ১৯৩২ সালের লস অ্যাঞ্জেলেস অলিম্পিকের একটি ম্যাচে আমেরিকাকে ২৪-১ গোলে হারিয়েছিল ভারত৷ সেই রেকৰ্ড ২০০৩ সাল পৰ্যন্ত অক্ষত ছিল৷ ম্যাচে ৮ গোল করেছিলেন ধ্যানচাঁদ৷ তাঁর ভাই রূপ সিং করেছিলেন ১০ গোল৷ অন্য ম্যাচে জাপানকে ১১-১ গোলে হারায় ভারত৷ আসরে দু ভাই মিলে করেছিলেন ২৫ গোল৷

১৯৩৪ সালের নিউজিল্যান্ড সফরে অধিনায়ক নিৰ্বাচিত হয়েছিলেন ধ্যানচাঁদ৷ সেবার ২৩ ম্যাচে ২০১টি গোল করেছিলেন তিনি৷ শোনা যায়, জাৰ্মান শাসক হের হিটলার ধ্যানচাঁদের খেলা দেখে এতটাই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে তাঁকে জাৰ্মান নাগরিকত্ব দিতে চেয়েছিলেন৷ কিন্তু তা নিতে অস্বীকার করেন ধ্যানচাঁদ৷ 


১৯৫৬ সালে ৫১ বছর বয়সে ক্লাব স্তরের হকি থেকে অবসর নেন ধ্যানচাঁদ৷

জীবনের শেষ সময়টা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন ধ্যানচাঁদ৷ ১৯৭৯ সালের ৩ ডিসেম্বর নতুন দিল্লির এইমসে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি৷ মূলত তাঁর হাত ধরেই ভারতীয় ক্রীড়াঙ্গন আন্তৰ্জাতিক মঞ্চে পরিচিতি লাভ করে৷ শুধু হকি নয়, সব ধ্বনের খেলোয়াড়রাই আজ ধ্যানচাঁদের কাছে কৃতজ্ঞ থাকা উচিত৷



Bartalipi Digital Desk

Bartalipi Digital Desk

Bartalipi Digital Desk

Total 29 Posts. View Posts


About us

প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ার যুগে খবরের সত্যতাটির পক্ষপাতদামুক্ত উদ্যোগ / দীক্ষা প্রয়োজন। ক্লান্তিকর সংবাদগুলি আর সাধারণ মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে না। অভ্যন্তরীণ খবরে বৈশ্বিক কোণ থেকে বর্ণিত করার লক্ষ্যে, "বার্তালাপি ডিজিটাল" ডিজিটাল সাংবাদিকতার মাঠে প্রবেশ করেছে। শিরোনামের মিশ্রণটি তার লক্ষ্য এবং লক্ষ্যটির স্ব-ব্যাখ্যামূলক। বৈশিষ্ট্যগুলি, নিউজফ্ল্যাশগুলি এর মাধ্যমে একটি প্ল্যাটফর্মে সমস্ত সিঙ্ক করা হয়, এটি বারাকের নেটিজেনদের একটি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ আভা দেয়। বার্তালাপি ডিজিটাল তাই ডিজিটাল ভারসাম্য পূরণের প্রতিশ্রুতি দেয় যা এটি ডিজিটাল বিবর্তনের যুগে একটি সংবাদ সংস্থা হিসাবে চিহ্নিত করবে




Follow Us