Tuesday, 11 May 2021  মঙ্গলবার, ২৭ বৈশাখ ১৪২৮
Bartalipi, বার্তালিপি, Bengali News Portal, বাংলা খবর

BARTALIPI, বার্তালিপি , Bengali News, Latest Bengali News, Bangla Khabar, Bengali News Headlines, বাংলা খবর

বাংলা খবর

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বাংলা নিউজ পোর্টাল

Bartalipi, বার্তালিপি, ক্যানসার জয় করলেন সঞ্জয় দত্ত

ক্যানসার জয় করলেন সঞ্জয় দত্ত

বুধবার ফুসফুসের ক্যানসার থেকে মুক্তি পাওয়ার কথা ঘোষণা করলেন সঞ্জয় দত্ত। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি বিস্তারিত পোস্ট করে জানালেন, ক্যানসারকে জয়
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, বিহার ভোট : বিজেপির টিকিট পেলেন সুশান্তের ভাই

বিহার ভোট : বিজেপির টিকিট পেলেন সুশান্তের ভাই

প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের খুড়তুতো ভাই নীরজ কুমার সিংকে বিহারের ছাতাপুর কেন্দ্রে প্রার্থী করছে বিজেপি। বুধবারই আসন্ন নির্বাচনের চতুর্থ
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, কীভাবে এক মাস বাইকুল্লা জেলে কাটালেন রিয়া?

কীভাবে এক মাস বাইকুল্লা জেলে কাটালেন রিয়া?

এক মাস মুম্বইয়ের বাইকুল্লা জেলে কাটানোর পর অবশেষে বম্বে হাইকোর্টের রায়ে বুধবার জামিন পেলেন প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রেমিকা
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, নিরলস মানবসেবার জন্য পুরস্কৃত সোনু

নিরলস মানবসেবার জন্য পুরস্কৃত সোনু

করোনা কালে অগণিত মানুষকে বাড়ি ফেরার সুযোগ করে দিয়েছেন, পড়ুয়াদের পড়ার সামগ্রী পাঠিয়েছেন, পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কেন্দ্রে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছেন,
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, পৃথিবী বাউলের না হোক, একদিন মানুষের হবে

পৃথিবী বাউলের না হোক, একদিন মানুষের হবে

আমাদের রণেশদার গানের ঘরটা জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। এ আমাদের জন্য বিরাট ধাক্কা। রণেশদা আমাদের গানের মানুষ। আমাদের মায়ার মানুষ। আমাদের
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, 'বিট্টু' হাত ধরে অস্কারের পথে সন্তোষ মোহনের দুই নাতনি

'বিট্টু' হাত ধরে অস্কারের পথে সন্তোষ মোহনের দুই নাতনি

বার্তালিপি ডিজিটাল ডেস্ক : ১৬ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের ছবিটিই সাড়া ফেলে দিয়েছে। পৌঁছে যাচ্ছে অস্কার পার্বণে। স্টুডেন্ট একাডেমি এডওয়ার্ড
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত মেসির!

বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত মেসির!

মঙ্গলবার এলএম টেন বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি শেষ করার আবেদন জানিয়েছেন। যদিও স্প্যানিশ ক্লাবের সঙ্গে তাঁর আগামী বছর পর্যন্ত চুক্তি রয়েছে।
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, আরও একবার বাবাকে হারালাম

আরও একবার বাবাকে হারালাম

জীবনে দ্বিতীয়বারের জন্য বাবাকে হারালাম। বৃহস্পতিবার মুম্বই পবন হংসরাজ শ্মশানে যখন গুরুজির নশ্বর দেহ পঞ্চভূতে বিলীন হয়ে যাচ্ছিলো, তখন ঠিক
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, তখন রোদ্দুরের দিকে তাকাতেও আমার ভয় হত

তখন রোদ্দুরের দিকে তাকাতেও আমার ভয় হত

দেবজিৎ সাহা

আমার তখন রোদ্দুরের দিকে তাকাতেও ভয় হত। নিজেকে কেমন যেন রিক্ত, নিঃস্ব মনে হত। মনে হত, জীবনটা হঠাৎই থমকে গেছে, এই জীবন থেকে আমার আর পাওয়ার কিছু নেই। শেষহীন এক অন্ধকারের মতো, ময়াল সাপের মতো এক ভয়ংকর ডিপ্রেশন আমাকে ক্রমশ যেন কোণঠাসা করে ফেলছিল।

সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যা মায়ানগরীর অন্ধকার দিকটি সবার সামনে নিয়ে এসেছে। সুশান্ত স্টার ছিলেন, তাই তাঁর অকাল মৃত্যু নিয়ে এতো বিতর্ক। কিন্তু স্বপ্ননগরীতে প্রতিদিন স্বপ্নভঙ্গের দুঃসহ ব্যথা নিয়ে কত শত অজানা সুশান্ত অকালে ঝরে যাচ্ছে, না, এর খবরটুকুও কোনও মিডিয়ায় আসে না।

স্টারডম আসলে এক যেন এক ফাঁদ। চক্রব্যূহ। সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে সেদিন মুকেশ খান্নার কথা শুনতে শুনতে তা-ই মনে হচ্ছিল। মুকেশ বলছিলেন, ছোট শহর থেকে যাঁরা বলিউডে আসেন, তাঁরা গোড়াতেই একটা ভুল করে ফেলেন। কী ভুল? না, তাঁরা যে সেতু পেরিয়ে মুম্বাই আসেন, মায়ানগরীতে পা দিয়ে প্রথমেই সেই সেতুটাকেই পুড়িয়ে ফেলেন। নিজের শেকড় থেকে বিচ্যুত হয়ে যান তাঁরা। আর একবার যদি স্টারডম ছুঁয়ে ফেলা যায়, তা হলে তো আর কথাই নেই। পুরো লাইফস্টাইলটাই পালটে যায়। বিশাল বাংলো, বিলাসী মার্সিডিজ, নাইট লাইফ। মুশকিলের বীজটা ঠিক এখানেই শেকড় ছড়াতে শুরু করে। স্টারসুলভ এই লাইফস্টাইল মেনটেন করতে গেলে চাই দেদার টাকা, এই টাকা পেতে গেলে চাই লাগসই  কাজ। কিন্তু কাজ যদি আর না আসে! তা হলে? ডিপ্রেশন এই বিন্দু থেকেই অক্টোপাসের মতো পেঁচিয়ে ধরা শুরু করে দেয়। শেকড়ের সেতু তো আগেই নিজের হাতে পুড়িয়ে দিয়েছেন, মানসিক সমর্থনের যাবতীয় পথ তো ততদিনে নিজেই বন্ধ করে দিয়েছেন। 

সুশান্ত এই চাপটা নিতে পারেননি। শুনতে খারাপ লাগবে, কিন্তু বাস্তব হচ্ছে, এই না-পারাটা পুরোপুরি তাঁর নিজের ব্যর্থতা। সুশান্তের মৃত্যুর জন্য স্কেপগোট খোঁজার হিড়িক পড়ে গেছে। বলিউডের বিগশটদের টার্গেট করা হচ্ছে, বলা হচ্ছে, তাঁদের স্বজনপোষণের শিকার হয়েছেন সুশান্ত। লবিবাজি। নেপোটিজম। যেন এই বিগশটরা একেকজন মাফিয়া!  যাঁরা সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড় করে দিচ্ছেন, তাঁরা একবার বুকে হাত দিয়ে বলুন তো, লবিবাজি বা স্বজনপোষণ কোথায় নেই। এমন একটি পেশা দেখা পারবেন যেখানে লবিবাজি হয় না? আরে, গ্ল্যামারের দুনিয়া ছাড়ুন, পাড়ার মুদির দোকানেও লবিবাজি হয়। স্বজনপোষণ হয়। চৌকশ কর্মীর মাথার ওপর মালিক তার গবেট পুত্রকে বসিয়ে দেয়। এটাই জীবনের দস্তুর, এটা মেনে নিয়েই পেশার জগতে লড়াইটা চালাতে হয়। স্যরি টু সে, সুশান্ত সিং রাজপুত এই লড়াইটা চালিয়ে যেতে পারেননি, এটা আসলেই তাঁর ব্যর্থতা। পাশাপাশি এ কথাও বলতে হবে যে সুশান্ত ডিপ্রেশনের জোনে চলে গিয়েছিলেন। এটা এক ধরনের রোগ। এটা না সারাতে পারলে জীবন থমকে যায়। যেতে পারে। 

কথা হল, এই রোগ থেকে নিরাময়ের পথটা কোথায়? এখানেই আসে মুকেশ খান্নার ওই কথাগুলো। কখনও, কখনই শেকড় থেকে বিচ্যুত হবেন না। দেখুন, সুশান্তের মতো আমিও স্মল টাউন থেকে এসেছি। অল্পবিস্তর স্টারডম আমিও পেয়েছি। কিন্তু ভাগ্যিস, আমি কখনও আমার শেকড়টাকে ছিন্ন করিনি। বরং কমলা আলোর আড়ালেও ওই শেকড়টাকেই সবার অজান্তে আঁকড়ে ধরে রেখেছি। হ্যাঁ, আমি ডিপ্রেশনে ছিলাম।

চার পাঁচ বছর ওই জোনে ছিলাম। নিজের মধ্যেই কেমন যেন কুঁকড়ে থাকতাম, মনে হতো আমি নিঃস্ব হয়ে গেছি। এক অদ্ভুত রিক্ততা সারাটা দিন আচ্ছন করে রাখত। সূর্যের দিকে, রোদের দিকে, আলোর দিকে তাকাতে ভয় হত। ছোট শহর থেকে এসেছি, মায়ানগরীতে নিজের একটা আইডেন্টিটি গড়ে তুলেছি। কিন্তু একসময় আমি বুঝতে পারছিলাম, ওই আইডেন্টিটি গড়ে তোলা যত কঠিন, তার চেয়ে অনেক অনেক কঠিন, কমলা আলোয় মোড়া ওই আইডেন্টিটি ধরে রাখা। যশ আসলে এক ধরনের ইনসিকিউরিটি বয়ে আনে। এই নাম-ডাক, স্টারডম যদি হারিয়ে যায়, তা হলে কী হবে, এই একটি ভয় আমাকে ডিপ্রেশনের চোরাবালিতে আস্তে আস্তে তলিয়ে দিচ্ছিল। 

আমি এই ফেজটা ওভারকাম করেছি। করতে পেরেছি, একটাই কারণ, কারণ আমি রুটেড ছিলাম। আমাদের ফ্যামিলি বন্ডেজটা পুরোপুরি মধ্যবিত্ত পরিবারের ভ্যালুজের ওপর দাঁড়িয়ে। বন্দনা, আমার স্ত্রী, আমার দুই সন্তান তো আছেই, পাশাপাশি শিলচরে আমার পরিবার, আমার ভাইয়েরা, পালংঘাটে আমার স্বজনরা, ওরা প্রতি মুহূর্তে মেন্টাল সাপোর্ট জুগিয়ে গেছে।  আমি যদি শেকড়টা উপড়ে ফেলে দিয়ে শুধু স্বপ্নের পেছনে ছুটতাম, তা হলে, এতদিনে আমিও তলিয়ে যেতাম। স্টারডম আসলেই এক চোরাবালির ওপর দাঁড়িয়ে থাকে, যে চোরাবালির ওপরটা চোখ ঝলসানো কমলা আলোয় মোড়া।

গত ক'মাস ধরে গোটা ইন্ডাস্ট্রি হাত- পা গুটিয়ে বসে আছে, লকডাউন, ফলে কাজ নেই কারোর। আমার খুব ভয় হয়, আরও কতো স্ট্রাগলার, শুধু স্ট্রাগলারই বা কেন, অনেক প্রতিষ্ঠিত শিল্পীও এই ধাক্কায় আর্থিক ও মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে তলিয়ে না যান। একটি ফিল্ম তৈরির সঙ্গে হাজার হাজার মানুষ জড়িত। সুপারস্টার থেকে শুরু করে স্পটবয়, পিরামিডটা চুড়ো থেকে যত নেমেছে, ততই বিস্তৃত হয়েছে। ছড়িয়েছে। প্রচুর আর্টিস্ট রয়েছেন যাঁরা ডেইলি বেসিসে পারিশ্রমিক পান। এঁরা পুরোপুরি বেকার গত ক'মাস ধরে। আমাদের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতেও অসংখ্য শিল্পী রয়েছেন, যাঁরা অনুষ্ঠান ভিত্তিক টাকা পান। তারপর ফরেন টু্র রয়েছে, এটাও পুরোপুরি বন্ধ। বিদেশ যাত্রা কবে ফের শুরু হবে, তা পুরোপুরি অনিশ্চিত। আমরা যাঁরা পারফর্মার, আমাদের যাবতীয় কারবারই গ্যাদারিং নিয়ে। ভিড় আমাদের অস্তিত্বের মাপকাঠি। সেই ভিড়ই যদি হারিয়ে যায়, তাহলে আমাদের অস্তিত্বও তো,  খুব স্বাভাবিক, সংকটে পড়বে। পড়বে কেন বলছি৷ পড়ে তো গেছেই। কলকাতা থেকে অনেকে যোগাযোগ করেছেন, আমি আমার সাধ্যমতো সাহায্য করেছি। এখনও মানুষকে খানিকটা সাহায্য করার মতো সঙ্গতি আমার রয়েছে, কারণ, ওই যে আগে বললাম, আমি শেকড় থেকে বিচ্যুত হইনি। মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে আমি যখন সাফল্য পেলাম, তখন কিন্তু আমি তাতে গা ভাসিয়ে দিইনি। আমি খুব হিসাব করে পা ফেলেছি। দশ পা ফেলার হলে, আমি সাত পা ফেলেছি, তিন পা হোল্ড করে রেখেছি। যা উপার্জন করেছি তার অন্তত চল্লিশ শতাংশ সঞ্চয় করে রেখেছি। এবং রেখেছি বলেই আজ এই সংকটেও আমাকে হাত পাততে হয়নি। গুয়াহাটির ফ্ল্যাট থেকে ভাড়া পাচ্ছি, এটাও ওই সময়ে ইনভেস্ট করেছিলাম বলেই সম্ভব হয়েছে। ভালো লাগছে, মানুষের বিপদের সময় কারোর কারোর কাজে আসতে পেরেছি। পালংঘাটের দুশো পরিবারকে সাহায্য পাঠাতে পেরেছি। প্রধানমন্ত্রী বা মুখ্যমন্ত্রীর ফান্ডে থোক টাকা দিতে পারতাম, তা অবশ্যই কাজে লাগত। কিন্তু আমার পালংঘাটের মানুষরা হয়তো তা সরাসরি পেতেন না। তাই আমার খুড়তুতো ভাইদের দিয়ে দুশো পরিবারকে কিছুটা ত্রাণ পৌঁছে দিয়েছি। 

আসলে এভাবেই মাটির সঙ্গে, শেকড়ের সঙ্গে নিজেকে জড়িয়ে রাখছি সবসময়। মায়ানগরীতে এটা ভীষণ প্রয়োজন। না হলে কোনও সংকটে পড়লে পাশে কাউকে পাওয়া যায় না। এক রিক্ততা বোধ ক্রমাগত এক অতল গহ্বরে ঠেলে ফেলে দিতে থাকে। সুশান্তের মতো প্রতিভা অকালে ঝরে যায়।

পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, সুশান্তের সই নকল করে টাকা তুলতেন রিয়া, অভিযোগ শ্রুতি মোদির

সুশান্তের সই নকল করে টাকা তুলতেন রিয়া, অভিযোগ শ্রুতি মোদির

মুম্বাইঃ সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্তে সামনে এল এক বিস্ফোরক তথ্য। ঘটনায় অভিযুক্ত সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী নাকি সুশান্তের সই নকল করে ব্যাংক থেকে টাকা সরিয়েছেন। ইডির জেরায় এমনই জানিয়েছেন সুশান্ত ও রিয়ার বিজনেস ম্যানেজার শ্রুতি মোদি। এমনকি রিয়ার বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য দিতে তিনি রাজসাক্ষী হতে পর্যন্ত প্রস্তুত। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে এই খবর জানা যাচ্ছে।

শ্রুতি জানিয়েছেন যে সুশান্তকে অচেতন করে রেখে তাঁর সই জাল করে টাকা সরিয়েছেন রিয়া চক্রবর্তী। ইডির কাছে তিনি জানিয়েছেন যে প্রয়াত অভিনেতাকে টানা তিন মাস ঘুমের ওষুধ দিয়ে রাখতেন রিয়া। আর তখনই অভিনেতার ব্যাংকের টাকা নয়ছয় করতেন তিনি। সুশান্তের সই জাল করে ব্যাংক থেকে টাকা তুলতেন রিয়া। এমনকি রিয়ার বিরুদ্ধে বয়ান দিতে রাজসাক্ষী হতেও রাজি শ্রুতি মোদি।

এছাড়া সুশান্তের বেশ কিছু পুরনো কাগজপত্রে সই এর সঙ্গে তার মৃত্যুর আগের দিনগুলির সইয়ের অমিল পাওয়া গিয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে। আর এখান থেকেই শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। সুশান্ত সিং রাজপুতের তদন্ত এই মুহূর্তে সিবিআই ও ইডির হাতে। ঘটনায় মানি লন্ডারিং এর কোন যোগ রয়েছে কিনা সেই বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ইডি। দফায় দফায় জেরা করা হচ্ছে রিয়া চক্রবর্তী ও তার পরিবারকে। এছাড়াও বিজনেস ম্যানেজার শ্রুতি মোদি, সুশান্তের ফ্ল্যাটমেট সিদ্ধার্থ পিঠানিকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। শ্রুতিকে জিজ্ঞাসা করেই বিস্ফোরক তথ্য উঠে এসেছে।

পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, ধোনি এবার আরও বেশি সময় কাটাবেন সেনাবাহিনীতে, জানালেন বন্ধু

ধোনি এবার আরও বেশি সময় কাটাবেন সেনাবাহিনীতে, জানালেন বন্ধু

নয়াদিল্লিঃ বাইশ গজ থেকে বিদায় নিয়ে মাহি এবার আরও বেশি সময় কাটাবেন সেনাবাহিনীর সঙ্গে। এমনটাই সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন তাঁর দীর্ঘদিনের বন্ধু তথা ব্যবসায়িক পার্টনার অরুণ পাণ্ডে। এর আগেও ধোনিকে সেনাবাহিনীর সঙ্গে দেখা গিয়েছে। মাঝের একটা সময় টেরিটোরিয়াল আর্মির ক্যাম্পে গিয়েছিলেন প্রাক্তন অধিনায়ক। তাঁকে সাম্মানিক লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদও দিয়েছে টেরিটোরিয়াল আর্মি। এবার আরও বেশি সময় সেনা-জওয়ানদের সঙ্গে দেখা যাবে মাহিকে।

ধোনির বন্ধু আরও জানিয়েছেন, এবার মাহি যেমন সেনাবাহিনীর সঙ্গে সময় কাটাবেন তেমনই ব্যবসায়িক কাজে আরও বেশি করে মন দেবেন। অরুণ পাণ্ডে বলেছেন, মাহি ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছিলেন শীঘ্রই তিনি অবসর ঘোষণা করবেন। কিন্তু তারিখ সম্পর্কে কাউকেই কিছু বলেননি। তাঁর কথায়, 'বোধহয় সাক্ষীও জানতেন না।'

অনেকের মতে, অবসরের দিনটিকে তাৎপর্যপূর্ন করে রাখতেই ১৫ অগস্টকে বেছে নিয়েছিলেন ধোনি। কারণ ফেয়ারওয়েল ম্যাচও খেলার সুযোগ হয়নি তাঁর। কোভিড আবহে তা হওয়া সম্ভবও ছিল না। তাই স্বাধীনতা দিবসেই নিজের অবসর ঘোষণা করেন ক্যাপ্টেন কুল।

পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, আসছে প্রভাস অভিনীত রামায়ন ভিত্তিক সিনেমা 'আদিপুরুষ'

আসছে প্রভাস অভিনীত রামায়ন ভিত্তিক সিনেমা 'আদিপুরুষ'

বার্তালিপি ডিজিটাল ডেস্ক : এবার রামের ভূমিকায় অভিনয় করতে চলেছেন দক্ষিণী সুপার স্টার প্রভাস। রবিবারই তাঁর আগামী ছবির ঘোষনা করেন তিনি। পরিচালক ওম রাউতের সঙ্গে মিলে একটি লাইভ ভিডিও করেন তিনি। সেখানেই আগামী ছবির বিষয়ে বলেন অভিনেতা।

অবশেষে নিজের সোশ্যাল মিডিয়া আ্যাকাউন্টে জানান আগামী ছবির নাম। শ্রীরামের ভূমিকায় দেখা যেতে চলেছে প্রভাসকে। ছবির নাম, 'আদিপুরুষ- অধর্মে বিরুদ্ধে ধর্মের বিজয় উত্সব' বলা হচ্ছে সিনেমাটি প্রায় ৫০০ কোটি টাকার বাজেট নিয়ে তৈরি হবে। ছবির নির্দেশনার দায়িত্বে থাকবেন পরিচালক ওম রাউত। হিন্দি তেলুগু ভাষায় তৈরি হবে এই ছবি। এছাড়া তামিল, মালয়ালম, কন্নড় সহ বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক ভাষায় ডাবিং করা হবে এই ছবি।

জানা গিয়েছে, আগামী বছর শুরু হবে ছবির শুটিং। ছবি মুক্তি পাবে ২০২২ সালে। রামায়ণের উপর নির্ভর করে তৈরি হবে এই ছবির কাহিনি। খলনায়ক অর্থাত্ রাবণের চরিত্রের জন্য একজন প্রখ্যাত অভিনেতার সঙ্গে কথাবার্তা বলছেন ছবির নির্মাতারা। ছবির প্রযোজনার দায়িত্বে থাকছেন টি সিরিজের কর্ণধার ভূষণ কুমার।

পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, নিয়মিত হাঁটলে অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি কমে

নিয়মিত হাঁটলে অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি কমে

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সুস্থ্যতার জন্য সচেতনাতাই আগে জরুরি।সুস্থ থাকতে হাঁটার কোনও বিকল্প নেই। হাঁটলে শরীরের প্রতিটি কোষে অক্সিজেন পৌঁছায়। ফলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক বেড়েযায়। সহজেই অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি কমে আসে। আর শারীরিক পরিশ্রমের সবচেয়ে সহজ পন্থা হলো হাঁটা। নিয়ম করে সকালে বা বিকেলে হাঁটতে পারেন। যত বেশি হাঁটবেন ততই আপনার স্টেপ কাউন্ট বাড়বে আর কমবে অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি।

এর আগেও হাঁটার ওপর অনেক গবেষণা চালানো হয়েছে। এ গবেষণায় অংশগ্রহণকারীরা ছিলেন বয়স্ক ও দীর্ঘমেয়াদি রোগে আক্রান্ত। এই গবেষণায় অংশ নেন ৪০ ও তদূর্ধ্ব বয়সের ৪ হাজার ৮০০ মানুষ। প্রত্যেক অংশগ্রহণকারী সর্বোচ্চ সাত দিন ‘অ্যাক্সেলেরোমিটার’ পরিধান করেছেন।

একটি জার্নালে হাঁটার ওপর এই গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে। গবেষকরা বলেছেন, হাঁটার গতি যেমনই হোক, একদিনে একজন মানুষের স্টেপ কাউন্টের সংখ্যার সঙ্গে তার মৃত্যুঝুঁকির গুরুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আছে। গবেষণার প্রধান যুক্তরাষ্ট্রের ‘ন্যাশনাল ক্যান্সার ইনস্টিটিউটের (এনসিআই) পেদ্রো সেইন্ট মরিস বলেন, হাঁটা শরীরের জন্য খুবই উপকারী– এটা আমাদের অনেকের জানা। তবে ঠিক কতগুলো ‘স্টেপ কাউন্ট’ মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে পারে তা আমরা অনেকেই জানি না। তিনি বলেছেন, কতটুকু গতিতে হাঁটা জরুরি তা আমাদের অজানা ছিল। এ বিষয়টি ভালোকরে খতিয়ে দেখতেই এই গবেষণা।

তবে শুধু হাঁটলে হবে তা না, কিছু নিয়মকানুন মানতে হবে। প্রচুর জল খেতে হবে। হাঁটার পর এক ঘণ্টার মধ্যেই কিছু খেয়ে নিতে হবে। হাঁটার সময় অবশ্যই ঢিলেঢালা পোশাক এবং উপযুক্ত জুতো পরে হাঁটা উচিত। প্রতিদিন হাঁটার ফলে যেমন শরীর ও মন সুস্থ এবং প্রাণবন্ত থাকে তেমনি হাঁটার সময় গতির দিকটাও দেখা দরকার। ব্যায়ামের ফলে সহজেই জীবন থেকে ওষুধের দাপট সরিয়ে ফেলা যায়। আর সবচেয়ে সহজ পদ্ধতির ব্যায়াম হলো হাঁটা, তাই সকলের উচিত প্রতিদিন ব্যস্ত জীবনের মধ্যে থেকেই একটু সময় বার করে হাঁটা।

 

হাঁটার উপকারীতা

  • উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে
  • ডায়াবেটিস কমাতে সাহায্য করে
  • শরীরে পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি থাকলে অনায়াসেই রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বেড়ে যায়
  • ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে
  • হাড়ের ক্ষয়রোগ জয়েন্টে ব্যথার ঝুঁকি কমে
  • হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঝুঁকি কমে
  • পায়ের শক্তি এবং পেশী শক্তি বৃদ্ধি হয়
  • স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়
  • স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়
  • ক্যান্সারের ঝুঁকি হ্রাস করে
  • মন মেজাজ ভালো রাখে
পুরোটা পড়ুন...

Bartalipi, বার্তালিপি, Bengali News Portal, বাংলা খবর